ঢাকা শনিবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২০, ১২ মাঘ ১৪২৭
২০ °সে

সাতকানিয়ায় পল্লী চিকিৎসক ধর্ষণ করেছে এক শিশুকে

সাতকানিয়ায় পল্লী চিকিৎসক ধর্ষণ করেছে এক শিশুকে
শিশু ধর্ষণ: প্রতীকী ছবি

মুখে মলম লাগানোর কথা বলে পল্লী চিকিৎসক ৫ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত বুধবার সন্ধ্যা আনুমানিক ৬টার দিকে চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার ছদাহা ইউনিয়নের খোর্দ্দ কেউচিয়া ছহির পাড়া এলাকায়। ধর্ষক পল্লী চিকিৎসক তাফসীর উদ্দীনকে (২৬) আটক করে পুলিশে দিয়েছে স্থানীয় জনতা।

ধর্ষক তাফসীর লোহাগাড়া উপজেলার পদুয়া ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড জঙ্গল পদুয়া রাজ্জাকের বাড়ির মৃত আবদুর রাজ্জাকের ছেলে। ঘটনার দিনগত রাতে ঘটনার শিকার শিশুটির মা বাদী হয়ে তাফসীরকে আসামি করে সাতকানিয়া থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন।

থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ছদাহা ইউনিয়নের খোর্দ্দ কেউচিয়া ছহির পাড়া এলাকায় ইটভাটার এক শ্রমিকের ছেলে গত মঙ্গলবার সন্ধ্যার দিকে খেলতে গিয়ে পায়ে আঘাত পায়। পরে চিকিৎসার জন্য স্থানীয় পল্লী চিকিৎসালয়ের চেম্বারে গেলে সেখানে দোকান বন্ধ পাওয়া যায়। পরদিন বুধবার বিকালে চিকিৎসককে চেম্বারে দেখে আঘাত পাওয়া ছেলেটির সঙ্গে তার ছোট দুই বোনও চেম্বারে যায়। আঘাত পাওয়া ছেলেটির পায়ের ড্রেসিং শেষ করে ছেলেটি ও ১ বোনকে চেম্বারের সামনে বেঞ্চে বসিয়ে রাখা হয়। পরে পল্লী চিকিৎসক তাফসীর উদ্দীন ৫ বছর ১০ মাস বয়সী শিশুটিকে মুখে মলম লাগিয়ে দেওয়ার কথা বলে চেম্বারের ভেতরে নিয়ে যায়। সেখানে রোগীর সিটে শুইয়ে শিশুটিকে ধর্ষণ করে। পরে ধর্ষিতা শিশুটি বাড়ি ফিরে তার বাবা-মাকে লজ্জাস্থানে জ্বালা যন্ত্রণা হচ্ছে বলে জানায়।

শিশুটির মা বলেন, 'আমার মেয়ের প্যান্ট খুলে লজ্জা স্থানে লালচে দাগ দেখতে পাই। বিষয়টি আমার সন্দেহ হলে আমি তাৎক্ষনিক পাড়া প্রতিবেশিদের বিষয়টি বলি। তারা ধর্ষকের চেম্বারে গিয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করলে সে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। পরে স্থানীয়রা তাকে আটক করে ভয়ভীতি দেখালে সে মুখে মলম লাগিয়ে দেওয়ার কথা বলে ধর্ষণের বিষয়টি স্বীকার করে। পরে পুলিশে খবর দিলে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে আমি বাদী হয়ে ধর্ষক তাফসীরকে একমাত্র আসামি করে সাতকানিয়া থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছি।'

আরও পড়ুন: বিজয়নগরে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে বৃদ্ধ নিহত

সাতকানিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. সফিউল কবীর বলেন, 'ঘটনার শিকার শিশুটির মা বাদী হয়ে শুধুমাত্র ধর্ষক তাফসীর উদ্দীনকে আসামি করে থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন। বৃহস্পতিবার বিকালে ধর্ষক তাফসীর চট্টগ্রাম জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট জিহান সানজিদার আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী প্রদান করেছে। অন্যদিকে, চিকিৎসা শেষে আদালতে শিশুটির ২২ ধারায় জবানবন্দী রেকর্ড করা হয়।'

ইত্তেফাক/নূহু

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
icmab
facebook-recent-activity
prayer-time
২৫ জানুয়ারি, ২০২০
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন