ঢাকা মঙ্গলবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২০, ১৫ মাঘ ১৪২৭
২৩ °সে

বাংলাদেশের আরো তিন সোনা

বাংলাদেশের আরো তিন সোনা
বাম থেকে স্বর্ণজয়ী ফাতেমা, জিয়ারুল ও মাবিয়া —সংগৃহীত

n স্বর্ণ জয়েও মাবিয়ার আক্ষেপ n খুশিতে টইটুম্বুর ফাতেমা ও জিয়ারুল

সোহেল সারোয়ার চঞ্চল

নেপালের কাঠমান্ডু এসএ গেমস থেকে প্রথম দুই দিনে চার স্বর্ণজয়ের পর বাংলাদেশের ক্রীড়াপ্রিয়রা অপেক্ষায় ছিলেন কবে আসবে পঞ্চম স্বর্ণ পদক। টানা চার দিন অপেক্ষার পর অবশেষে গতকাল গেমসের সপ্তম দিনে একসঙ্গে তিনটি সোনার পদক জয়ের খবর দিয়েছেন ক্রীড়াবিদেরা। ভারোত্তোলন থেকে দুটি এবং একটি সোনা এসেছে ফেন্সিং থেকে। এবারও ভারোত্তোলনে সোনার পদক তুলে আনলেন মাবিয়া আক্তার সীমান্ত। এসএ গেমসের গত আসর ২০১৬ সালে গৌহাটি থেকে সোনার পদক জয় করে দেশের মানুষকে উপহার দিয়েছিলেন। গতকাল ঠিক আবার চার বছর পর সেই মাবিয়া সোনার পদক উপহার দিয়েছেন। গৌহাটির পর এবার পোখারাতেও মাবিয়ার আনন্দাশ্রু দেখা গেল। গৌহাটিতে ৬৩ কেজি ওজন শ্রেণিতে সোনা জয় করেছিলেন। আর এবার সোনার পদক জিতলেন ৭৩ কেজি ওজন শ্রেণিতে। চার বছরের ব্যবধানে দুইবার সোনার পদক জয় করেছেন সীমান্ত।

আবারও সোনার পদক জয় করলেও মাবিয়ার মনে আক্ষেপেরে শেষ নেই। তার আক্ষেপের যথেষ্ট কারণও আছে। ভালোভাবে অনুশীলন করতে না পারার আক্ষেপ এই কৃতী ক্রীড়াবিদের। একজন ক্রীড়াবিদ সাফল্য তুলে আনার পর যখন ভালো অনুশীলনের আক্ষেপেরে কথা বলেন, তখন সেটা বাড়তি নজর কাড়ে। অনেকে সাফল্য পেতে ব্যর্থ হয়ে ভালো অনুশীলন হয়নি বলে আক্ষেপ করেন। কিন্তু মাবিয়া এ ক্ষেত্রে অন্যরকম। তিনি সাফল্য এনেও অনুশীলন নিয়ে আক্ষেপ করেন। মাবিয়া আগেও অনুশীলনের কথা বলেছেন, কিন্তু তা নিয়ে খুব গা করেননি সংশ্লিষ্টরা। নানা সমস্যার মধ্যে মাবিয়ারা অনুশীলন করেন। শুধু গেমসে যাওয়ার আগে অনুশীলন করানোর বিপক্ষে মাবিয়া। ঢাকা ছেড়ে যাওয়ার আগে মাবিয়া বলছিলেন, যারা উন্নতি করতে চায় তারা সারা বছর অনুশীলনে থাকেন। গেমস শেষ করে আবার অনুশীলনে ফিরে যান। মাবিয়া বলেছিলেন, ‘আমরা অনুশীলনের ক্ষেত্রে ব্যতিক্রম। যে কোনো গেমস শেষ করে বাসায় চলে যাই। আবার কবে আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতা হবে, তখন গিয়ে অনুশীলন শুরু করি। অন্যরা গেমস কলে অনুশীলনে ফিরে গেলেও আমরা বাসায় বসে থাকি। এই প্রথায় পরিবর্তন হওয়া দরকার।’

শুক্রবার অনুশীলন ছিল মাবিয়াদের। পরদিন শনিবার ফাইনাল। তার আগে নিজেদের ইভেন্ট নিয়ে মহাটেনশনে থাকা মাবিয়া বলছিলেন, ‘আগেও পদক জিতেছি, কিন্তু এবার একটু টেনশন লাগছে।’ গৌহাটিতে যখন মাবিয়া সোনার পদক উপহার দিয়েছিলেন, প্রধনামন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে ফ্ল্যাট উপহার দিয়েছিলেন। সাফল্যের পরও নিন্দুকেরা মাবিয়ার সোনাজয়টাকে খাটো করে দেখার সুযোগ নিয়েছিলেন। কিন্তু এবার নেপালে গিয়ে যখন আবার সোনার পদক জয় করলেন, তখন সমালোচকদের মুখে কুলুপ পড়ে গেল।

কালকের প্রথম সোনার পদকের আনন্দের রেশ না কাটতেই আবারও ভারোত্তোলনে ছেলেদের ইভেন্টেও সোনাজয়ের খবর আসে। এবার সোনার পদক দিলেন ভারোত্তোলক জিয়ারুল ইসলাম। সেনাবাহিনীর এই ভারোত্তোলক এবারই প্রথম এসএ গেমেস লড়াই করতে গিয়ে বাজিমাত করে দিয়েছেন। সেনাবাহিনীকেও গৌরব এনে দিয়েছেন জিয়ারুল ইসলাম।

গেমসের সপ্তম দিনে ৭ নম্বর সোনার পদক উপহার দিয়েছেন ফেন্সার ফাতেমা মুজিব। তলোয়ারের মতো ফাইট করে সাফল্য আনতে হয়। বাংলার এই ফেন্সার দুর্দান্ত অভিযানে নেমে সোনার পদক উপহার দিয়েছেন। শ্রীলঙ্কা, ভারত ও নেপালকে হারিয়েছেন ফাতেমা মুজিব। এই ক্রীড়াবিদ নেপালে সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ‘দুইবার ভারতেক হারিয়েছি।’

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
icmab
facebook-recent-activity
prayer-time
২৮ জানুয়ারি, ২০২০
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন