ঢাকা শুক্রবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
২১ °সে


ফারুক আবদুল্লাহ ইস্যুতে প্রথম দিনেই উত্তাল ভারতের পার্লামেন্ট

ফারুক আবদুল্লাহ ইস্যুতে প্রথম দিনেই উত্তাল ভারতের পার্লামেন্ট

জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বিলোপের পর ১০০ দিনের বেশি অতিক্রান্ত হলেও এখনো গৃহবন্দি রাজ্যের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী তথা লোকসভার এমপি ফারুখ আবদুল্লাহ। শীতকালীন অধিবেশনের প্রথম দিনে তাকে নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে একজোটে ঝাঁপিয়ে পড়ল বিরোধীরা। তাদের দাবি, সম্পূর্ণ বেআইনিভাবে ফারুখ আবদুল্লাহকে বন্দি করে রাখা হয়েছে। তাকে পার্লামেন্টের অধিবেশনে উপস্থিত থাকতে দেওয়া হোক বলেও দাবি তোলা হয়। গতকাল সকালে অধিবেশনের শুরুতেই ফারুখ আবদুল্লাহর অনুপস্থিতি নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তৃণমূল এমপি সৌগত রায়। জাতীয় সংগীত শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে লোকসভার স্পিকারের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘স্যার, ফারুখ আবদুল্লাহ আসেননি। হয় সরকারকে নির্দেশ দিন তাকে মুক্তি দিতে নাহলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে এখনই এ বিষয়ে বিবৃতি দিতে বলুন।’

স্পিকার ওম বিড়লা ‘নতুন সদস্যেরা আগে শপথ নিন, তার পর দেখা যাবে বলে তাকে নিরস্ত করার চেষ্টা করলে একজোটে হিন্দিতে বিরোধীদের ওপর হামলা বন্ধ হোক, ফারুখ আবদুল্লাহকে রেহাই দেওয়া হোক’ স্লোগান দিতে শুরু করেন কংগ্রেস ন্যাশনাল কনফারেন্স (এনসি) এবং ডিএমকে এমপিরা। স্লোগান দিতে দিতে সবাই ওয়েলে নেমে আসতে শুরু করলে ওম বিড়লা বলেন, ‘সবকিছু নিয়ে আলোচনায় প্রস্তুত আমি। কিন্তু আগে নিজেদের আসনে ফিরুন। পার্লামেন্ট স্লোগান দেওয়ার জায়গা নয়। তর্ক-বিতর্ক এবং আলোচনা করতেই এখানে আসা।’ এরপরও দমে যাননি বিরোধীরা। বরং প্রশ্ন তোলা হয়, ইউরোপীয় ইউনিয়নের এমপিরা যেখানে কাশ্মীরে যাওয়ার অনুমতি পেলেন, সেখানে বিরোধী নেতাদের সেখানে যেতে দেওয়া হচ্ছে না কেন? ফারুখ আবদুল্লাহকে বন্দি করার সিদ্ধান্তকে নির্মম বলে উল্লেখ করেন কংগ্রেস এমপি অধীর চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘১০৮ দিন ধরে বন্দি ফারুখ আবদুল্লাহ। এটা কী ধরনের নির্মমতা? অবিলম্বে তাকে পার্লামেন্টে আনা প্রয়োজন। এটা তার সাংবিধানিক অধিকার।’ —আনন্দবাজার পত্রিকা

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
০৬ ডিসেম্বর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন