ঢাকা সোমবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
২১ °সে


এসএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতি-২০২০

এসএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতি-২০২০

বাংলা প্রথমপত্র

মোস্তাফিজুর রহমান লিটন

সিনিয়র শিক্ষক

বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ, ঢাকা

বই পড়া

১.‘জ্ঞানতৃষ্ণা তার প্রবল, কিন্তু বই কেনার বেলা সে অবলা। আবার কোনো কোনো বেশরম বলে, বাঙালির পয়সার অভাব।’ বটে? কোথায় দাঁড়িয়ে বলছে লোকটা এ কথা? ফুটবল মাঠের সামনে দাঁড়িয়ে, না, সিনেমার টিকিট কাটার ‘কিউ’ থেকে? থাক্ থাক। আমাকে খামাখা চটাবেন না।’

ক.কেউ স্বেচ্ছায় বই পড়লে আমরা তাকে কোনো দলে ফেলে দিই? ১

খ.‘যে জাতি মনে বড় নয়, সে জাতি জ্ঞানেও বড় নয়’( উক্তিটির অর্থ বুঝিয়ে লেখ। ২

গ.উদ্দীপকে বাঙালি জাতির বই না কেনার প্রবণতা ‘বই পড়া’ প্রবন্ধের কোন ঘটনাকে ইঙ্গিত করে? ব্যাখ্যা কর। ৩

ঘ.‘আমাদের হীনমন্যতাই আমাদের বই না কেনার মূল কারণ’( উক্তিটি উদ্দীপক এবং ‘বই পড়া’ প্রবন্ধের আলোকে বিশ্লেষণ কর। ৪

ক.কেউ স্বেচ্ছায় বই পড়লে আমরা তাকে নিষ্কর্মার দলে ফেলে দিই।

খ. উক্তিটি দ্বারা মনের প্রসারতার সাথে জ্ঞানের প্রসারতার সম্পর্ককে বোঝানো হয়েছে।

ধনসম্পদ অর্জন করার ক্ষেত্রে জ্ঞানের প্রয়োজনীয়তা যেমন রয়েছে, তেমনি তা রক্ষা করার জন্যও জ্ঞানের দরকার। কেননা, জ্ঞানহীন সম্পদশালী তার সম্পদকে সঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারে না। আর এই জ্ঞান অর্জন করতে হলে প্রধান শর্ত হলো একটি সুন্দর মন থাকতে হবে। মনের প্রসারতা থাকলে জ্ঞানেরও প্রসার ঘটবে সহজে। তাইতো লেখক বলেছেন, ‘যে জাতি মনে বড় নয়, সে জাতি জ্ঞানেও বড় নয়।’ উক্তিটি দ্বারা মূলত মনের প্রসারতার সাথে জ্ঞান প্রসারণের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ককেই বোঝানো হয়েছে।

গ.উদ্দীপকে বাঙালি জাতির বই না কেনার প্রবণতা ‘বই পড়া’ প্রবন্ধে বর্ণিত পেশাদারদের কাব্যগ্রন্থ না কেনার মানসিকতাকে ইঙ্গিত করে। ‘বই পড়া’ প্রবন্ধ থেকে জানা যায়, আমাদের শিক্ষিত সমাজের লোলুপদৃষ্টি অর্থের ওপর নিবদ্ধ। তাই ব্যবসার প্রসারের জন্য পেশাদাররা হাজারখানা ল-রিপোর্ট কিনলেও সাহিত্যচর্চার জন্য একটি কাব্যগ্রন্থ কিনতেও নারাজ। এ প্রবণতা উদ্দীপকের ঘটনাতেও দেখা যায়। উদ্দীপকে বর্ণিত আছে, বাঙালি জাতি বই কিনতে অনিচ্ছুক। এ জন্য কেউ কেউ বলে বাঙালি পয়সার অভাবে বই কিনতে পারে না। কিন্তু বাঙালি খেলা দেখার জন্য বা সিনেমা দেখার জন্য অনেক টাকা ব্যয় করলেও বই কেনার জন্য অর্থ ব্যয়ে অনাগ্রহী। অর্থাত্, বাঙালি বিনোদনপ্রেমী হলেও সাহিত্যপিপাসু নয়। ‘বই পড়া’ প্রবন্ধেও দেখা যায়, বাঙালি ব্যবসার প্রয়োজনে হাজার টাকা খরচ করে হাজারখানা ল-রিপোর্ট কেনে, কিন্তু একটিও কাব্যগ্রন্থ কেনে না। কারণ এতে ব্যবসার কোনো প্রসার সম্ভব নয়। উদ্দীপকেও তেমনটাই দেখা যায়, অন্য কাজে টাকা ব্যয় করলেও বই কিনতে টাকা ব্যয়ের কোনো আগ্রহ নেই বাঙালির। সুতরাং বলা যায়, উদ্দীপকের বাঙালি জাতির বই না কেনার প্রবণতা ‘বই পড়া’ প্রবন্ধে বর্ণিত পেশাদারদের কাব্যগ্রন্থ না কেনার মানসিকতাকেই ইঙ্গিত করে।

ঘ.‘আমাদের হীনম্মন্যতাই আমাদের বই না কেনার মূল কারণ’( উক্তিটি উদ্দীপক এবং ‘বই পড়া’ প্রবন্ধে বর্ণিত বাঙালির বই না কেনার প্রবণতার দিক বিবেচনায় যথার্থ বলে প্রতিপন্ন হয়। ‘বই পড়া’ প্রবন্ধের আলোকে জানা যায়, আমরা শিক্ষার নগদ ফল প্রাপ্তিতে বিশ্বাসী এবং সাহিত্যচর্চার সুফল সম্পর্কে উদাসীন। এ কারণেই নগদ লাভের বস্তুগুলো আমরা স্বচ্ছন্দ চিত্তে কিনলেও বই কিনতে নারাজ। কেননা এতে নগদ লাভের কোনো সম্ভাবনা নেই।উদ্দীপকে দেখা যায়, বাঙালি বিভিন্নভাবে টাকা ব্যয় করলেও বই কিনে টাকা ব্যয় করতে চায় না। তখন মনে করে পয়সার বড় অভাব তার। এ থেকে একধরনের হীন মনোভাবের পরিচয় পাওয়া যায়। আবার ‘বই পড়া’ প্রবন্ধেও দেখা যায়, পেশাদাররা ব্যবসার খাতিরে হাজারখানা ল-রিপোর্ট কিনলেও একটি কাব্যগ্রন্থও কেনে না। কারণ কাব্যগ্রন্থ ব্যবসার প্রসারে ভূমিকা রাখতে পারবে না। তাই শিক্ষিত সমাজ বই কিনতে আগ্রহী নয়। কারণ এতে করে অর্থের সংস্থান সম্ভব নয়। মূলত এ ধরনের মানসিকতা আমাদের হীনম্মন্যতাকে তুলে ধরে। ‘বই পড়া’ প্রবন্ধে বাঙালির যে বৈশিষ্ট্যকে তুলে ধরা হয়েছে তা উদ্দীপকেও লক্ষণীয়। বাঙালি আর্থিক দিকটি বিচার করে বলে সাহিত্যচর্চার মাধ্যমে মনের খোরাক যোগাতে অনাগ্রহী। প্রবন্ধের আলোকে এ বিষয়টি সম্পর্কে নিশ্চিত ধারণা লাভ করা যায়। আবার, উদ্দীপকে দেখা যায়, বিনোদনের জন্য অর্থ ব্যয় করতে চাইলেও বাঙালি বই কিনে সাহিত্যচর্চা করার ব্যাপারে উদাসীন। এ বিষয়গুলো থেকে বাঙালি তথা আমাদের হীনম্মন্যতাই স্পষ্টভাবে প্রকাশ পায়। সুতরাং ‘বই পড়া’ প্রবন্ধ এবং উদ্দীপকের আলোচনায় বাঙালির যে মানসিকতা প্রকাশ পেয়েছে তা থেকে বোঝা যায়, বাঙালি সাহিত্যচর্চার ব্যাপারে উদাসীন। বই ক্রয় করা তাদের জন্য বাজে খরচেরই নামান্তর। আর এ ধরনের আচরণ বাঙালির হীনম্মন্যতাকেই প্রকাশ করে। তাই ‘বই পড়া’ প্রবন্ধ এবং উদ্দীপকের আলোকে প্রশ্নোক্ত মন্তব্যটিকে যথার্থ বলা যায়।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
০৯ ডিসেম্বর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন