সড়ক দুর্ঘটনা

পঞ্চগড়ে নবদম্পতিসহ নিহত ৭

পৃথক স্থানে আরো চার জনের মৃত্যু

প্রকাশ : ০৯ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  ইত্তেফাক ডেস্ক

গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে শুক্রবার যাত্রীবাহী বাসের সঙ্গে সংঘর্ষে লেগুনাটি রাস্তার পাশে খাদে পড়ে উলটে যায় —ইত্তেফাক

পঞ্চগড় থেকে তেঁতুলিয়াগামী একটি মিনিবাস ছাগল বাঁচাতে গিয়ে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ইজিবাইকটিকে চাপা দেয়। এতে বৃদ্ধ ও নবদম্পতিসহ সাত জন নিহত হয়েছেন। গতকাল পঞ্চগড়-বাংলাবান্ধা মহাসড়কের মাগুরমারী চৌরাস্তা (আমতলা) এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা ইজিবাইকের যাত্রী। এছাড়া একই দিন পৃথক স্থানে বাবা-ছেলেসহ সড়কে ঝরেছে আরো তাজা চার প্রাণ। প্রতিনিধি ও সংবাদদাতাদের পাঠানো খবর—পঞ্চগড় প্রতিনিধি জানান, নিহতরা হলেন—পঞ্চগড় সদর উপজেলার চেকরমারি গ্রামের ইজিবাইক চালক রফিক (২৮), সদর উপজেলার বদিনাজোত গ্রামের আকবর আলী (৭২) ও তার স্ত্রী নুরিমা (৬৫), তেঁতুলিয়া উপজেলার মাঝিপাড়া গ্রামের লাবু ইসলাম (২৫) ও তার স্ত্রী নববধূ মুক্তি (১৯), সদর উপজেলার রায়পাড়া গ্রামের মাকুদ হোসেন (৪৩) ও সাহেবজোত গ্রামের নারগিস বানু (৪২)। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী হাইওয়ে পুলিশের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ এনে মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে।  ঘটনার পর পরই জেলা প্রশাসক সাবিনা ইয়াসমিন, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইউসুফ আলীসহ ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিরা ঘটনাস্থলে গেলে বিক্ষুব্ধ জনতার তোপের মুখে পড়েন। আড়াই ঘণ্টা পর যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।  লাবু-মুক্তা দম্পতির মাত্র ৪৫ দিন আগে বিয়ে হয়েছিল।  পঞ্চগড় ফয়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নিরঞ্জন সরকার জানান, ঘটনাস্থলে পাঁচ জন নিহত হন। পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার সিরাজউদ্দৌলা পলিন জানান, চিকিত্সাধীন অবস্থায় দুই জন মারা যায়। এদিকে বোদায় ট্রাকের চাপায় রাজকুমার (৩৫) নামে এক মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। সুকুমার ওরফে মহব্বত নামে অপর এক আরোহী গুরুতর আহত হয়েছেন। গত বৃহস্পতিবার রাতে বোদা উপজেলার বোদা-দেবীগঞ্জ মহাসড়কের বোদা বাইপাস এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। রাজকুমারের বাড়ি পঞ্চগড় জেলা শহরের চাঁনপাড়া এলাকায়। তিনি ঐ এলাকার দেবারুর ছেলে। তারা দুজনেই কাঠ (ফার্নিচার) ব্যবসায়ী।

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) সংবাদদাতা জানান, ঢাকার কেরানীগঞ্জ উপজেলায় ট্রাক ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে মোটরসাইকেল আরোহী বাবা-ছেলে নিহত ও একজন আহত হয়েছেন। উপজেলার রুহিতপুর এলাকায় গতকাল এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- আসহাদুল হক ইপু (৪০) ও তার শিশু ছেলে সোহান (৭)। মডেল থানার ওসি সাকের মোহাম্মদ যুবায়ের জানান, তাদের বিস্তারিত পরিচয় জানা যায়নি।

গাইবান্ধা প্রতিনিধি জানান, পলাশবাড়ীতে গতকাল বাসের ধাক্কায় একটি লেগুনা ছিটকে খাদে পড়ে যায় ও বাসটি উলটে যায়। এতে আরিফ মিয়া (১৯) নামে এক লেগুনা চালক নিহত ও বাসের অন্তত ১৫ যাত্রী আহত হন। ঢাকা-রংপুর মহাসড়কে উপজেলার মহেশপুর এলাকায় সকাল ৮টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। আরিফ মিয়া গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলার ধাপেরহাট ইউনিয়নের তিলকপাড়া গ্রামের মো. সঞ্জু মিয়ার ছেলে।