ঢাকা শনিবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২০, ১২ মাঘ ১৪২৭
২০ °সে

রাজঘাট-বিদ্যাবিল সড়ক

ঝুঁকিপূর্ণ জোড়া ব্রিজ দুর্ঘটনার আশঙ্কা

ঝুঁকিপূর্ণ জোড়া ব্রিজ দুর্ঘটনার আশঙ্কা
শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার) :উপজেলার রাজঘাট-বিদ্যাবিল সড়কে ঝুঁকিপূর্ণ জোড়া ব্রিজ —ইত্তেফাক

অনুজকান্তি দাশ, শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার) সংবাদদাতা

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলার রাজঘাট থেকে বিদ্যাবিল যাওয়ার পথে ঝুঁকিপূর্ণ জোড়া ব্রিজ আতঙ্ক নিয়ে অতিক্রম করছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। মরণফাঁদ জেনেও অধিক যাত্রী নিয়ে ভারী যানবাহনগুলো ব্রিজের ওপর দিয়ে আসা-যাওয়া করছে অহরহ। যে কোনো মুহূর্তেই ঘটতে পারে বড়ো কোনো দুর্ঘটনা, এমনটাই আশঙ্কা স্থানীয়দের।

সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার রাজঘাট ইউনিয়নের রাজঘাট চা-বাগানের ২ নম্বর ওয়ার্ড এলাকায় ৯ নম্বর লাইন কিংবা মেডিক্যাল রোডের পাশে রাজঘাট থেকে বর্মাছড়া, উদনাছড়া ও বিদ্যাবিল চা-বাগানে যাওয়ার প্রধান সড়কের মুখে লাংলিয়া ছড়ার ওপরে একটি পাকা ব্রিজ ও একটি বেইলি ব্রিজ প্রায় ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় পাশাপাশি অবস্থান করছে। পাকা ব্রিজটির পিলারগুলো নিচ থেকে কিছুটা হেলে গেছে। বেইলি ব্রিজটিও পাটাতন সরে গিয়ে স্থানে স্থানে উঁচু-নিচু হয়ে আছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, ব্রিজ দুটির সংযোগস্থলে একটি সাইনবোর্ড রয়েছে। এতে ‘ঝুঁকিপূর্ণ সেতু, ভারী যানবাহন চলাচল নিষেধ’ লেখা থাকলেও সাইনবোর্ডটি রং উঠে গিয়ে অস্পষ্ট হয়ে গেছে। বর্তমানে ব্রিজ দুটির সঙ্গে এই সাইনবোর্ডটিও বেহাল।

স্থানীয়রা জানান, ব্রিজটি ব্যবহারের অনুপযোগী দীর্ঘদিন থেকে। ১৯৯৫-৯৬ সালে ব্রিজের পাশেই একটি বেইলি ব্রিজ নির্মাণ করা হয়। এই বেইলি ব্রিজটিও বেশ কয়েক বছর ধরে ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়ে আছে। উভয় ব্রিজ দিয়েই ভারী যানবাহন চলাচলে চা-বাগান কর্তৃপক্ষের নিষেধ থাকলেও মানছে না কেউ।

স্থানীয় বাসিন্দা আব্দুল জলিল, রামলাল ভূমিজসহ আরো অনেকেই বলেন, রাজঘাট ইউনিয়নের বর্মাছড়া, উদনাছড়া ও বিদ্যাবিল এই তিন বাগানের বাসিন্দাদের জন্য বিকল্প কোনো রাস্তা না থাকায় তাদের নিত্যপ্রয়োজনীয় কাজে পার্শ্ববর্তী সিন্দুরখান ও কালীঘাট ইউনিয়ন হয়ে ঐ একটি সড়কেই ঝুঁকি নিয়ে তারা শহরের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য সুমন তাঁতি বলেন, ব্রিজ দুইটির অচলাবস্থা বিষয়ে ইউনিয়ন থেকে উপজেলা পর্যায়ে জানানো হলে প্রায় দুই বছর আগে আনুমানিক ২০১৮ সালের প্রথম দিকে উপজেলা প্রকৌশল বিভাগের লোকজন এখানে এসে পরিদর্শন করে যান। তারপর থেকে আর কোনো খবর নেই।

এ ব্যাপারে শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রকৌশলী সঞ্জয় মোহন সরকার বলেন, এখানে খুব শিগগিরই নতুন ব্রিজ নির্মাণের কাজ শুরু হবে। ইতিমধ্যে আমরা সয়েল টেস্টের কাজ শেষ করেছি, ঢাকায় ডিজাইনের কাজ চলছে। ডিজাইন হয়ে গেলেই খুব দ্রুত টেন্ডার আহ্বান করা হবে।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
icmab
facebook-recent-activity
prayer-time
২৫ জানুয়ারি, ২০২০
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন