ঢাকা মঙ্গলবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২০, ১৫ মাঘ ১৪২৭
২৪ °সে

সমাজ ও রাষ্ট্রের কল্যাণেই পিছিয়ে পড়াদের এগিয়ে আনা দরকার

সমাজ ও রাষ্ট্রের কল্যাণেই পিছিয়ে পড়াদের এগিয়ে আনা দরকার

আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবসে বক্তারা

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার

বর্তমানে সমাজ ও রাষ্ট্র প্রাচীন ধ্যানধারণা দূরে ঠেলে দিয়ে অনেক দূর এগিয়ে গেলেও আমাদের হাসপাতাল ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলো এখনো পর্যন্ত প্রতিবন্ধীবান্ধব নয়। এসব জায়গা এখনো প্রতিবন্ধীদের জন্য সহজে প্রবেশযোগ্য নয়। এখনো প্রতিবন্ধী জনগোষ্ঠীকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও হাসপাতালগুলোতে ক্রমান্বয়ে নিগ্রহের শিকার হতে হয়। গতকাল ফিজিক্যালি চ্যালেঞ্জড ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন (পিডিএফ) আয়োজিত এক প্যানেল আলোচনায় এসব কথা বলেন বক্তারা। আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবস উপলক্ষ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উচ্চতর সামাজিক বিজ্ঞান গবেষণা কেন্দ্র (কারাস) মিলনায়তনে এ আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। দিবসটি উপলক্ষ্যে এদিন সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশ থেকে র্যালি বের হয়। র্যালিটি ক্যাম্পাসের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থান প্রদক্ষিণ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের কারাস ভবনে এসে শেষ হয়।

বক্তারা বলেন, ‘আমাদের চারপাশে অসংখ্য মানুষ রয়েছে, যারা আমাদের মতো যোগ্য নয়, তারা ভিন্নভাবে যোগ্য। শুধু আমরা যথেষ্ট পরিমাণ যোগ্য নই বলে আমাদের চারপাশের মানুষগুলোর যোগ্যতা সম্পর্কে জানি না।’ তারা বলেন, দেশে এমন আইন প্রণয়ন, অবকাঠামোগত উন্নয়ন, মানসিকতার প্রসারে কাজ করতে হবে, যাতে ভিন্নভাবে সক্ষম ১০ শতাংশ মানুষের জন্য সবকিছু সহজবোধ্য হবে। এই ১০ শতাংশ মানুষ যাতে সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা পেয়ে থাকে।

বেসরকারি খাতগুলো নিয়ে বলতে গিয়ে বক্তারা বলেন, সারাদেশে সরকার প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সুযোগ-সুবিধা বাড়ানোর জন্য কাজ করলেও বেসরকারি খাতগুলো এখনো প্রতিবন্ধীবান্ধব নয়। এই খাতগুলোকে প্রতিবন্ধীবান্ধব উদ্যোগ নেওয়ার জন্য উত্সাহিত করতে হবে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান। পিডিএফের সভাপতি অনুপ কুমারের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মনির হোসেনের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের (এটুআই) ন্যাশনাল এক্সেসিবল কনসালটেন্ট ভাস্কর ভট্টাচার্য, বাংলাদেশ বিজনেস অ্যান্ড ডিজঅ্যাবিলিটি নেটওয়ার্ক (বিবিডিএন) প্রোগ্রাম ম্যানেজার গোলাম কিবরিয়া। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন ডাকসুর সহসাধারণ সম্পাদক (এজিএস) সাদ্দাম হোসেন।

অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, ‘সমাজের পিছিয়ে পড়া এই জনগোষ্ঠী সম্পর্কে আমাদের দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন করা খুবই জরুরি। সেদিক থেকে আমরা খুবই পিছিয়ে আছি। বর্তমান সরকার এই পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর উন্নয়নের জন্য বেশ কিছু কাজ করেছে। তারপরও আন্তর্জাতিক দৃষ্টিকোণ থেকে এই উন্নয়ন খুবই সামান্য।’

ইফতেখারুজ্জামান বলেন, প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা সমাজ ও রাষ্ট্রের কাছে করুণা চায় না। তারা চায় সমান অধিকার, সমান সুযোগ। সবার সমান অধিকার প্রতিষ্ঠা করার বিষয়টি তাদের দাবি। তাদের সমান সুযোগ-সুবিধা প্রদান করতে হবে।

ডাকসুর সহসম্পাদক (এজিএস) সাদ্দাম হোসেন বলেন, ‘রাজনীতিতে প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে কাজ করেছি। প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীরাও রাজনীতিতে সম্পৃক্ত হতে পারে। তারা রাজনৈতিক ও নিজেদের সমস্যাগুলো নিজেরাই সমাধান করতে পারে।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
icmab
facebook-recent-activity
prayer-time
২৮ জানুয়ারি, ২০২০
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন