ঢাকা শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
২৫ °সে


জনগণ সচেতন হলে কাজের হিসাব নিতে সক্ষম হয় : আনোয়ার হোসেন মঞ্জু

জনগণ সচেতন হলে কাজের হিসাব নিতে সক্ষম হয় : আনোয়ার হোসেন মঞ্জু
জাতীয় পার্টি-জেপির চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মঞ্জু। ফাইল ছবি

জাতীয় পার্টি-জেপির চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মঞ্জু এমপি বলেছেন, দেশের জনগণ সচেতন থাকলে বিভিন্ন পর্যায়ে বাস্তবায়নাধীন বা বাস্তবায়নকৃত কাজের হিসাব নিতে সক্ষম হয়। সাধারণ মানুষের ধারণা, যারা দেশ পরিচালনা বা সরকারি দায়িত্ব পালন করেন তাদের মধ্যে অনেকেই সততার সঙ্গে কাজ করেন না। তাই দেশে সত্, সাহসী ও প্রতিশ্রুতিশীল সরকারি কর্মকর্তাদের সংখ্যা বাড়ানো দরকার।

তিনি গতকাল মঙ্গলবার পিরোজপুর জেলার কাউখালীতে উপজেলা পর্যায়ের কয়েকটি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে আরো বলেন, দেশে আজ অনিয়ম, অপচয়, আত্মসাত্ তথা দুর্নীতির ক্ষেত্রগুলো খোঁজা হচ্ছে। সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা ও শিক্ষাদানের ক্ষেত্রে শিক্ষক ও ব্যবস্থাপনা কমিটির দায়িত্বরতরা কতটুকু সক্রিয় তা খতিয়ে দেখা উচিত। এসব শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানের অবকাঠামোগত নির্মাণ, রক্ষণাবেক্ষণ, সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড, সৌন্দর্য বৃদ্ধিসহ বিভিন্ন খাতে কেন্দ্রীয় ও স্থানীয়ভাবে বরাদ্দকৃত অর্থের যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। এ ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট সকলেরই জবাবদিহিতা থাকা দরকার। এ কাজে স্থানীয় সরকারে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদেরও খেয়াল রাখতে হবে। দেশের অন্য কোথাও অর্থের অপচয় থাকতে পারে বা যথাযথ ব্যবহারের ক্ষেত্রে ঘাটতি থাকতে পারে। কিন্তু কাউখালী, ভাণ্ডারিয়া বা ইন্দুরকানীতে এই প্রবণতা কাম্য নয়। এ অঞ্চলে আমরা গত ৩৪ বছরে কাজের ক্ষেত্রে সরকারি সম্পদের সদ্ব্যবহারে সব সময় আন্তরিকতা, নিষ্ঠা তথা স্বচ্ছতা-জবাবদিহিতাকে প্রাধান্য দিয়ে এসেছি। স্থানীয় নেতৃত্বকে নির্লোভ, সত্ ও ত্যাগী হিসেবে দায়িত্ব পালনের জন্য পরামর্শ দিয়েছি। বিশেষত, এলাকার মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে তারা আগ্রহ ও উত্সাহ দেখাতে সক্ষম বলে এ এলাকায় প্রণিধানযোগ্য ও সন্তোষজনক মাত্রায় ইতিবাচক পরিবর্তন সাধিত হচ্ছে।

আনোয়ার হোসেন মঞ্জু এমপি গতকাল বিকালে কাউখালী উপজেলা পরিষদ কার্যালয় প্রাঙ্গণে উপজেলার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সমূহের প্রধান শিক্ষক ও বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি/সহসভাপতিদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা খালেদা খাতুন রেখার সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান আবু সাঈদ মিয়া মনু, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আবদুল হাকিম, উপজেলা প্রকৌশলী মো. জাফর হোসেন, প্রধান শিক্ষক সুব্রত রায় প্রমুখ।

এ সময় মঞ্চে ছিলেন ভাণ্ডারিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মিরাজুল ইসলাম, কাউখালী উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মৃদুল আহমেদ সুমন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নার্গিস আক্তার হাদিয়া, উপজেলা জেপির সভাপতি মাহবুবুর রহমান খান ও সাধারণ সম্পাদক মো. শাহ আলম নসু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. দেলোয়ার হোসেন তালুকদার, জেলা পরিষদের সদস্য শাহাজাদি রেবেকা শাহীন চৈতী প্রমুখ।

আরো পড়ুন : কবিগুরুর আগমনের শতবর্ষে আনন্দে ভাসছে সিলেট

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন কাউখালী সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আমিনুর রশীদ মিল্টন, শিয়ালকাঠি ইউপি চেয়ারম্যান সিকদার দেলোয়ার হোসেন, চিড়াপাড়া-পারসাতুরিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মাহমুদ খান খোকন, আমড়াজুড়ি ইউপি চেয়ারম্যান মো. শামসুদ্দোহা চাঁদ, সয়না-রঘুনাথপুর ইউপি চেয়ারম্যান এলিজা সাঈদ, আওয়ামী লীগের উপজেলা যুগ্ম সম্পাদক মনিরুজ্জামান পল্টন ও সাংগঠনিক সম্পাদক সুনীল কুন্ড, জেলা পরিষদের সদস্য জাহাঙ্গীর হোসেন প্রমুখ।

এরপর আনোয়ার হোসেন মঞ্জু এমপি সন্ধ্যায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন। তিনি হাসপাতাল ভবন নির্মাণের অগ্রগতির ক্ষেত্রে দীর্ঘদিনের জটিলতা নিরসনের নির্দেশ দেন। পরে উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় তিনি বলেন, কাউখালীসহ ভাণ্ডারিয়া ও ইন্দুরকানী উপজেলায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি সন্তোষজনক যা দেশের অন্যান্য এলাকার জন্য অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত হতে পারে।

ইত্তেফাক/ইউবি

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৫ নভেম্বর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন